হাটহাজারী পৌরসভার কার্যক্রম বন্ধ, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন চান পৌর কর্মচারীরা

পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের রাষ্ট্রীয় কোষাগার হতে শতভাগ বেতন-ভাতা প্রদানসহ পেনশন প্রথা চালু ও জনপ্রতিনিধিদের সম্মানী ভাতা প্রদানের দাবীতে সব কর্মকর্তা-কর্মচারী সুশৃঙ্খলভাবে হাটহাজারী পৌরসভা কার্যালয়ের সম্মুখে অবস্থান কর্মবিরতি পালন করছে। কর্মবিরতিতে হাটহাজারী পৌরসভার সব ধরণের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় জনসাধারণের সেবামূলক কাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি হয় এবং আগত সেবা প্রাপ্তিদের কাছে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেন তারা।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার (১জুলাই) সকাল ৯টা থেকে কর্মবিরতি শুরু করে পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন, চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশন প্রদানের দাবিতে দেশের ৩২৮টি পৌরসভায় এক যোগে কর্মবিরতি চলছে।

এদিকে, সোমবার (১জুলাই) সকাল থেকে বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে হাটহাজারী পৌরসভার কর্মচারীরা এ কর্মবিরতিতে বক্তারা বলেন, পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বাংলাদেশ সরকারের সংবিধানের ৫৯(২) অনুচ্ছেদ মোতাবেক সরকারি কর্মচারী হওয়া সত্ত্বেও রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা না পেয়ে মাসের পর মাস পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে জীবন যাপন করছে। তাই পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদি, পেনশন ও গ্রাচুইটি সরকারি কোষাগার থেকে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান তারা।

এ দাবি না মানা পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে এবং এ কর্মবিরতি আগামীকাল (২জুলাই) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সম্মুখে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলবে বলে জানিয়েছেন বক্তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *