“উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন পূরণের পথে এই বাজেট”

“উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন পূরণের পথে এই বাজেট” -মোঃ রাশেদুল ইসলাম রাসেল সদস্য, প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে আসন্ন ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়ইটার দিকে বাজেটে অনুমোদনের মধ্য দিয়ে মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক শেষ হয়। ‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ : সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’ শিরোনামে প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা।

এবার অর্থমন্ত্রী হিসেবে প্রথমবারের মতো বাজেট পেশ করছেন মুস্তফা কামাল। এটি দেশের ৪৮তম ও আওয়ামী লীগ সরকারের ২০তম বাজেট। প্রস্তাবিত ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেটের আকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। এটি চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের মূল বাজেটের তুলনায় ৫৮ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা এবং সংশোধিত বাজেটের চেয়ে ৮০ হাজার ৬৪৯ কোটি টাকা বেশি। চলতি অর্থবছরের মূল বাজেটের আকার ছিল ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য সুখবর রয়েছে নতুন বাজেটে। ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে রেমিট্যান্সের ওপর ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।

অর্থাৎ এক হাজার টাকা রেমিট্যান্স পাঠালে প্রবাসীরা প্রণোদনা হিসেবে পাবেন ২০ টাকা। রেমিট্যান্স প্রেরণে বর্ধিত ব্যয় লাঘব এবং বৈধ পথে অর্থ প্রেরণে উৎসাহিত করার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রণোদনা হিসেবে চলতি অর্থবছরে ৩ হাজার ৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। অন্যদিকে বাজেটে নিত্যপ্রয়োজনীয় কোন জিনিসের দাম বাড়েনি। এতে সাধারণ মানুষের কোনো ভোগান্তি হবে না। গণমানুষ এ বাজেটকে অবশ্যই স্বাগত জানাবে। গত বছরের বাজেট যেভাবে বাস্তবায়ন হয়েছে, এবারের বাজেটও সেভাবে বাস্তবায়িত হবে।

এই বাজেট শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের কল্যাণের বাজেট। এতে সাধারণ মানুষের ওপর কোনো বাড়তি চাপ পড়বে না। আওয়ামী লীগ সরকারের ইশতেহারের সঙ্গে সঙ্গতি রেখেই বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। বাজেটে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসহ সেবাখাতেও ব্যাপক সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

এ বাজেটে গণমানুষের স্বার্থ সংরক্ষণ করা হয়েছে। আমার বিশ্বাস মমতাময়ী জননী স্নেহময়ী ভগিনী দেশরত্ন জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের পথে আমরা এগিয়ে যাবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *