নিজস্ব প্রতিবেদক : আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা শুরু হবে আগামী ২২ মে। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন, ফুলবাড়িয়া রেলওয়ে কল্যাণ ট্রাস্ট, মিরপুর পুলিশ লাইন, বিমানবন্দর, বনানী ও জয়দেবপুর রেলস্টেশনে এই টিকেট বিক্রী হবে।

বুধবার( ২৪ এপ্রিল) রেলমন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানায়। আগামী ৫ জুনকে ঈদুল ফিতরের দিন ধরে অগ্রিম টিকিট বিক্রির এই পরিকল্পনা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। বেচাকেনা শুরুর দিন মিলবে ৩১ মের যাত্রার টিকিট। ২৩ মে দেওয়া হবে ১ জুনের টিকিট ও ২৪ মে পাওয়া হবে ২ জুনের আগাম টিকিট।এছাড়া ২৫ মে দেওয়া হবে ৩ জুনের টিকিট ও ২৬ মে বিক্রি হবে ৪ জুনের আগাম টিকিট।

কিন্তু এবার ঈদের রেল টিকিট রেলওয়ের নতুন তৈরি করা অ্যাপে মিলবে না। টিকিট কাউন্টার থেকে বেচাকেনা চলবে আগের নিয়মেই। সরাসরি কাউন্টার ছাড়াও আগের নিয়মে মোবাইল ও অনলাইনে মিলবে ঈদের টিকিট।

প্রতিবারের মতো এবারও একজন যাত্রী সর্বোচ্চ ৪ টি টিকিট কিনতে পারবেন। ঈদের সময়ে সব আন্তঃনগর ট্রেনের ছুটির দিন বন্ধ থাকবে। এছাড়া ঈদের তিনদিন আগে থেকে কন্টেইনার ও জ্বালানীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে।

৩৩টি আন্তঃনগর ট্রেনের সঙ্গে ঈদ উপলক্ষে এবার যুক্ত হচ্ছে ১২টি ঈদ স্পেশাল ট্রেন। অতিরিক্ত যাত্রীবহনে ১৩৮টি যাত্রীবাহী বগিও সংযুক্ত করা হবে। ঈদ ফিরতি টিকিট বিক্রি হবে ২৯ মে থেকে ২ জুন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মঙ্গলবার বিকালে রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন জানান, দুর্ভোগ কমাতে কমলাপুর ছাড়াও পাঁচ স্থান থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে। কোনো যাত্রীকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে না। এবার আমরা ৫০ শতাংশ টিকিট অনলাইনে বিক্রি করব।

সুজন বলেন, ঈদ উপলক্ষে অতিরিক্ত যাত্রীবহনে ১২টি স্পেশাল ট্রেন ও ১৩৮টি যাত্রীবাহী কোচ প্রস্তুত রাখা হচ্ছে। টিকিট কালোবাজারি রোধে জাতীয় পরিচয়পত্র দেখানোর পরই টিকিট দেয়া হবে। ঈদের সব কয়টি ট্রেন সিডিউল অনুযায়ী চালানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নারী ও প্রতিবন্ধীদের জন্য পর্যাপ্ত কাউন্টার খোলা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ২৫ এপ্রিল ঢাকা-রাজশাহী বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস উদ্বোধন হচ্ছে। পশ্চিমাঞ্চলে ঈদের আগেই আরেকটি কম বিরতির ট্রেন উদ্বোধন করা হবে। এতে এবার ঈদে যাত্রীদের দুর্ভোগ থাকবে না। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ২৩টি কাউন্টার খোলা হবে। প্রতিদিন সকাল ৮টায় টিকিট বিক্রি শুরু হবে।

স্পেশাল ট্রেন ও বাড়তি বগি : ঈদের আগে পরে ১০ দিন অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের জন্য ৬ জোড়া স্পেশাল ট্রেন চালাবে রেল কর্তৃপক্ষ। পবিত্র ঈদের দিন ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার লাইনে শোলাকিয়া স্পেশাল-১ এবং ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ লাইনে শোলাকিয়া স্পেশাল-২ চলবে।

এছাড়া ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা লাইনে দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল, চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম লাইনে চাঁদপুর স্পেশাল-১ ও ২, খুলনা-ঢাকা-খুলনা লাইনে খুলনা স্পেশাল চলাচল করবে। ২ থেকে ৪ জুন ও ৬ থেকে ১২ জুন এসব ট্রেন চলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *